ঢাকা, বুধবার   ১৭ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৪ ১৪৩১

বুয়েটে অনতিবিলম্বে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্ররাজনীতি চালু করতে হবে : ছাত্রলীগ সভাপতি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৩৬, ১ এপ্রিল ২০২৪  

বুয়েটে অনতিবিলম্বে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্ররাজনীতি চালু করতে হবে : ছাত্রলীগ সভাপতি

বুয়েটে অনতিবিলম্বে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্ররাজনীতি চালু করতে হবে : ছাত্রলীগ সভাপতি

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) অবিলম্বে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্ররাজনীতি চালু করার দাবি জানিয়েছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাদ্দাম হোসেন। তিনি বলেছেন, ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধের নাটক বাংলাদেশে বন্ধ করতে হবে। বুয়েটে অনতিবিলম্বে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্ররাজনীতি চালু করতে হবে।

গতকাল রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার প্রাঙ্গণে ছাত্রলীগ আয়োজিত বুয়েটে সাম্প্রতিক ঘটনার জেরে আয়োজিত এক সমাবেশে এ মন্তব্য করেন তিনি।

বুয়েট ছাত্রাবাস থেকে সিট বাতিল হওয়া ইমতিয়াজ রাব্বির প্রসঙ্গে সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘ইমতিয়াজ যদি একা স্বাধীনতার স্বপক্ষে লড়াই করে আমরা তার পক্ষে লড়াই করব। সংবিধান সমাবেশের স্বাধীনতা, সংগঠন করার অধিকার দিয়েছে। যারা সংবিধানবিরোধী সিদ্ধান্ত দিয়েছে তাদেরকে শিক্ষা দেওয়ার জন্য আমরা শহিদ মিনারে হাজির হয়েছি। বলা হয় আমরা অনুপ্রবেশ করেছি। নাগরিক হিসেবে বুয়েট কেন; সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাওয়ার অধিকার আমাদের রয়েছে।

ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, কাদের কাছে অনুমতি নেব আমরা? যারা ২১ ফেব্রুয়ারি, ২৬ মার্চের বিরোধিতা করে তাদেরকে সামাজিকভাবে বয়কট করতে হবে। ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধের নাটক বাংলাদেশে বন্ধ করতে হবে। আল্টিমেটাম দিয়ে বলতে চাই, বুয়েটে অনতিবিলম্বে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্ররাজনীতি চালু করতে হবে। ছাত্র সংসদ নির্বাচন দিতে হবে এবং ইমতিয়াজ রাব্বির সিট ফিরিয়ে দিয়ে তাকে সসম্মানে বরণ করে নিতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা জানি ছাত্ররাজনীতিতে নেগেটিভ এলিমেন্ট রয়েছে। তবে এটাকে সংস্কার করতে হবে আরো ভালো ছাত্ররাজনীতি দিয়ে। ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধের নামে সংবিধান অবমাননা করা হয়, যাচ্ছেতাই ক্যাম্পাস কালচার তৈরি করে। অন্ধকার রাজনীতি চর্চা করবে মৌলবাদী ও স্বাধীনতার বিপক্ষের গোষ্ঠী। হিজবুত তাহরীর শিক্ষার্থীদের অফিসিয়াল ই-মেইলে মেইল পাঠায় খেলাফত প্রতিষ্ঠার, ক্যাম্পাসে কিউআর কোড লাগায় জঙ্গিবাদ চর্চার। ’

তিনি বলেন, ‘আমরা চাই বুয়েটের শিক্ষার্থীরা আধুনিকায়ন করে স্মার্ট ছাত্ররাজনীতি উপহার দেবে। তারা তাক লাগানো প্রযুক্তি তৈরি করে বাংলাদেশকে গর্বিত করবে। আপনারা বলেন ছাত্ররাজনীতিতে র‍্যাগিং ও গেস্টরুম কালচার রয়েছে। আপনারা শিক্ষার্থীরা আসুন, ছাত্ররাজনীতির স্ট্যান্ডার্ড তৈরি করুন। আমরা গণতান্ত্রিকভাবে তা অনুসরণ করব।’

সমাবেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল, ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, সরকারি তিতুমীর কলেজ, বাঙলা কলেজ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগসহ আশপাশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও ইউনিট ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সমবেত হন।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনানের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য প্রদান করেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক সাবিনা, বুয়েটের সাবেক শিক্ষার্থী আবু সাঈদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সাধারণ সম্পাদক সজল কুন্ডু, ঢাকা মহানগর উত্তর সাধারণ সম্পাদক সাগর আহমেদ শামীম, সভাপতি রিয়াজ মাহমুদ, ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতি মাজহারুল কবির শৈয়ন, সাধারণ সম্পাদক তানভীর হাসান সৈকত প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, গেল সপ্তাহের বুধবার মধ্যরাতে নেতাকর্মীসহ বুয়েট ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেন ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন। শিক্ষার্থীরা সংগঠনটির এমন পদক্ষেপকে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ বুয়েটে ফের রাজনীতি শুরুর তৎপরতা বলে উল্লেখ করেছেন। এরপর শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলন শুরু করেন। পরে শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রবেশের ঘটনায় অভিযুক্ত ২১ ব্যাচের পুরকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী ইমতিয়াজ হোসেন রহিম ওরফে ইমতিয়াজ রাব্বির হলের সিট বাতিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়