ঢাকা, সোমবার   ২৭ মে ২০২৪ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪৩১

মাইম্যান সৃষ্টি করা যাবে না : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:৩২, ২ মে ২০২৪  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

‘মাইম্যান’ সৃষ্টি না করতে কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্দেশনা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল রাতে গণভবনে দলের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে তিনি বলেন, কমিটি করতে হবে এলাকায় গিয়ে। কোনোভাবেই মাইম্যান সৃষ্টি করা যাবে না। বিভিন্ন নির্বাচন নিয়ে সংকট তৈরি হয়েছে। সেগুলো দ্রুত সমাধান করতে হবে। দলের বৃহত্তর স্বার্থে অভ্যন্তরীণ গ্রুপিং নিরসন করতে হবে। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতা বাংলাদেশ প্রতিদিনকে এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বৈঠক শেষে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, উপজেলা নির্বাচন নিয়ে কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে কোনো কথা আলোচনা হয়নি। তবে পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। সাংগঠনিক নির্দেশনা অমান্য করলে সময় মতো ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত বৈঠক চলে। বৈঠকে উপজেলা নির্বাচনে নিয়ে কথা বলতে চান দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সাহাবুদ্দিন ফরাজী। এ সময় দলীয় সভানেত্রী তাকে থামিয়ে দিয়ে বলেন, আজ এসব নিয়ে কোনো কথা শুনব না। পরে এ নিয়ে কেউ কথা বলেননি। সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জুন মাসে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক ডাকব। সেখানে শুধুই সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে কথা বলব। দীর্ঘদিন নির্বাসিত জীবন থেকে দেশে ফিরে কীভাবে দলকে সুসংগঠিত করেছেন, দেশের তখন কী অবস্থা ছিল, এখন কোথায় নিয়ে এসেছেন এসব নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন বঙ্গবন্ধুকন্যা।

স্থানীয় পর্যায়ে দলে কোন্দল সৃষ্টি হয়েছে জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, বিভিন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলের ভিতরে অনৈক্য সৃষ্টি হয়েছে। এ সংকট জিইয়ে রাখা যাবে না। এটা দ্রুত সমাধান করতে হবে। সংকট সমাধান না করলে দলেরই ক্ষতি হবে। দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের এলাকায় গিয়ে কমিটি করার নির্দেশনা দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, কমিটি করতে হবে এলাকায় গিয়ে থেকে। তোমরা তো এখন অনেকেই দিনে গিয়ে মঞ্চে বক্তৃতা শেষে কমিটি ঘোষণা দিয়ে আসো। আগে আমি এলাকায় গিয়ে সেখানে থেকে কাজ করতাম, নেতা-কর্মীদের সঙ্গে কথা বলতাম।

বিএনপি নেতারা সরকারবিরোধী আন্দোলনে নামছেন- এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি নেতাদের কাছে আমেরিকা ভালো দেশ। তাদের প্রভু দেশ। কদিন আগে যুদ্ধের বিরোধিতা করায় সাধারণ মানুষের আন্দোলনে কী জুলুমটাই না করল আমেরিকার পুলিশ। ৭০০ জন শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করল পুলিশ। এমনকি এক নারী অধ্যাপককেও গায়ের জোরে মাটিতে ঠেসে ধরে হাতকড়া পরিয়েছে। তারা বলছে, এটা নাকি গণতন্ত্রের অংশ। বিএনপি প্রভুদের গণতন্ত্রের অংশ যদি এমন হয় তাহলে তাদের কাছ থেকে (আমেরিকা) আমরাও গণতন্ত্র শিখছি। সামনে আন্দোলনের নামে অরাজকতা করলে সেটাই প্রয়োগ করব।

বৈঠকে আগামী ১৭ মে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে সারা দেশে এতিমখানায় এতিমদের মাঝে খাবার বিতরণ করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তা বাস্তবায়ন করবে দলের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটি। একই সঙ্গে কমিটির নেতারা সারা দেশে বৃক্ষ রোপণ করবেন। এ কার্যক্রম চলবে জুন-জুলাই মাস পর্যন্ত। বৈঠকে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার কাছে এ প্রস্তাব দেন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, আচ্ছা ঠিক আছে। দেখা যাক।

শোক প্রস্তাব পাঠ করেন দলের উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান। বক্তব্য রাখেন, আমিনুল ইসলাম আমিন, ইকবাল হোসেন অপু, আনোয়ার হোসেন, গোলাম কবির রাব্বানী চিনু প্রমুখ।

বৈঠক থেকে বেরিয়ে গণমাধ্যমে কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাচন নিয়ে আজকে দলের কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে কোনো আলোচনা হয়নি। তবে পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। সাংগঠনিক নির্দেশনা অমান্য করলে সময় মতো ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, এ বছর আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর হীরক জয়ন্তী জাঁকজমকপূর্ণভাবে আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। করোনার কারণে বড় করে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়নি। কিন্তু এবার বড়সড়ো করে জাঁকজমকপূর্ণভাবে পালন করা হবে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আগামী ১৭ মে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ও শেখ কামালের জন্ম দিবস পালনের বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এ ছাড়া ১৫ আগস্টসহ বিভিন্ন দিবস পালন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়