ঢাকা, সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ১৬ ১৪২৯

কর্মীর অভাব, চোর-ছ্যাঁচোড়, ছিনতাইকারী দিয়ে বিএনপির সমাবেশ

রাজনীতি ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০:৫৩, ২৮ নভেম্বর ২০২২  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ক্ষমতা দখলের লোভে বিভাগে বিভাগে সমাবেশ করছে বিএনপি। কর্মীর অভাবে এসব সমাবেশে লোকসমাগমের জন্য খরচ করছে প্রচুর অর্থ। টাকা দিয়ে ধরে আনছে চোর-ছ্যাঁচোড়, ছিনতাইকারীও। তাই বিএনপির প্রতিটি সমাবেশেই নেতাকর্মীদের মোবাইল, মানিব্যগ চুরির হিড়িক পড়েছে।

কুমিল্লায় বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ থেকে শতাধিক মোবাইল ও মানিব্যাগ চুরি হয়েছে। শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) দুপুর থেকে শনিবার (২৬ নভেম্বর) পর্যন্ত এসব চুরির ঘটনা ঘটেছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এর মধ্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেত্রী ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানার মোবাইল ফোনও চুরি হয়েছে। এতেই প্রমাণ হয় সারা দেশে চোর-ছ্যাঁচোড় ভাড়া করে সমাবেশ করছে বিএনপি।

জানা গেছে, সমাবেশে লোকসমাগমের দায়িত্বে থাকা নেতারা কর্মী না পেয়ে টাকা দিয়ে এসব চোর, ছিনতাইকারী ধরে আনছে।

শুধু কুমিল্লা নয়, এমন চুরির ঘটনা ঘটেছে বিএনপির সব’কটি সমাবেশেই। বাংলাদেশ প্রতিদিনের তথ্যানুযায়ী সিলেটে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ থেকে দুই ডজনেরও বেশি মোবাইল চুরি হয়েছে। বরিশাল, খুলনা, ময়মনসিংহ, ও চট্টগ্রামের সমাবেশেও অসংখ্য মোবাইল মানিব্যাগ চুরির ঘটনা ঘটেছে।

এদিকে ১১ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, বিএনপির বিভিন্ন সমাবেশ ও কর্মসূচিতে যোগ দেওয়া কর্মীরা হাত খরচের জন্য মোবাইল ছিনতাইয়ে জড়িয়ে পড়ছেন। কর্মসূচিতে আসতে যে খরচ হয় তা তুলতেই বিএনপি কর্মীরা ছিনতাই বা চুরিতে জড়িয়ে পড়ছেন। বিএনপির এমন কয়েকজন চোর ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তারও করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, নিজ দলের কর্মী বলে বিষয়টি নিয়ে থানা পুলিশের সহায়তা চাচ্ছে না বিএনপির নেতাকর্মীরা। কারণ এতে দলের সম্মান ক্ষুণ্ন হবে। তবে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেত্রী ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানার ফোন চুরি হওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে সবাই মুখ খুলতে শুরু করেছেন। ফোন চুরির পর ক্ষুব্ধ হয়ে রুমিন নিজেই বলেছেন- ‘সমাবেশে কিছু লোক আসে বিরিয়ানি খেতে আর কিছু আসে চুরি করতে।’ আর আমান উল্লাহ আমান বলেছেন- ‘এমন চোর, পকেটমার দিয়ে সরকার পতনের আন্দোলন বেশি দিন করা যাবে না। লোকসমাগম কম হোক তবুও টাকা দিয়ে চোর, ছ্যাঁচোড় সমাবেশে আর আনা যাবে না।’

সর্বশেষ
জনপ্রিয়