ঢাকা, রোববার   ১৪ জুলাই ২০২৪ ||  আষাঢ় ২৯ ১৪৩১

‘বাংলাদেশ স্মার্ট হচ্ছে, সেনাবাহিনীকেও স্মার্ট হতে হবে’

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৭:৩৯, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, আমরা জাতিসংঘে এক নম্বর শান্তিরক্ষী প্রেরণকারী দেশ। এটা আমাদের পেশাগত মানের একটা জ্বল জ্বল উদাহরণ। তবে আমাদের এই অর্জনে খুশি হয়ে থেমে থাকলে হবে না, আরও এগোতে হবে। সারা বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে। তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদেরও এগুতে হবে। বাংলাদেশ স্মার্ট হচ্ছে, সেনাবাহিনীকেও স্মার্ট হতে হবে। ভবিষ্যতের টেকনোলজি, রণকৌশল ও বিশ্ব পরিস্থিতিকে মাথায় রেখে নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে।

বরিশালের শেখ হাসিনা সেনানিবাসে ১৫তলা বিশিষ্ট সেনাসদস্যদের পারিবারিক বাসস্থান ‘সেনানীড়’ উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি স্টেশন অফিসার্স মেস-বি, ডিভিশন মডেল রুম, ডিভিশন সুইমিং পুল, গ্যারিসন মসজিদ-৩-এর উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

সেনাপ্রধান আরও বলেন, ‘স্থাপনাগুলো তৈরির মাধ্যমে আপনাদের (সেনা সদস্যদের) জীবনযাত্রার মান আগের চেয়ে আরামদায়ক হবে। এগুলো আপনাদের মনোবল বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর দায়িত্ব হলো সেবা করা, বহিঃশত্রু থেকে দেশকে রক্ষা করা। আত্মত্যাগের মানসিকতা নিয়ে আমাদের সবসময় কাজ করতে হবে। কষ্ট করার জন্যই আমরা সেনাবাহিনীর এই চ্যালেঞ্জিং পেশা বেছে নিয়েছি। নিজেদের প্রস্তুত করে দেশ-বিদেশে দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে মানুষের কাছে নিজেদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে সক্ষম হব বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।’

তিনি বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ‘সোনার বাংলা’ গড়ে তোলার পাশাপাশি একটি আধুনিক ও যুগোপযোগী সেনাবাহিনী গঠনের স্বপ্ন দেখেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য ও গতিশীল নেতৃত্বে জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে চলেছেন। আমাদের দেশ যদি আজ স্বাধীন না হতো, এর অনেক উন্নয়নই হতো না। এটা আমি গভীরভাবে বিশ্বাস করি। তাই আমাদের দেশের স্বাধীনতার জন্য যারা জীবন উৎসর্গ করে গেছেন, যাদের জীবনের সুবর্ণ সময়টা আমাদের জন্য আত্মত্যাগ করে গেছেন, তাদের ভুললে চলবে না। গুণীর গুণগান না গাইলে গুণী তৈরি হয় না। যারা আমাদের জন্য আত্মত্যাগ করেছে, সেইসমস্ত বীরদের কথা স্মরণ করতে হবে, তাদের প্রশংসা করতে হবে।’

অনুষ্ঠানে জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) ৭ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার বরিশাল এরিয়া, সেনাসদর ও বরিশাল এরিয়ার ঊর্ধ্বতন সেনাকর্মকর্তা, জুনিয়র কমিশন্ড অফিসারসহ অন্যান্য পদবির সৈনিক এবং অসামরিক কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়