ঢাকা, রোববার   ১৪ জুলাই ২০২৪ ||  আষাঢ় ২৯ ১৪৩১

আমাদের কেউ যেন উসকানিতে না যায় : কোটা বিষয়ে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:৩৬, ১০ জুলাই ২০২৪  

আমাদের কেউ যেন উসকানিতে না যায় : কোটা বিষয়ে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

আমাদের কেউ যেন উসকানিতে না যায় : কোটা বিষয়ে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

সরকারি চাকরিতে কোটাবিরোধী  আন্দোলনের বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আমরা যে যা-ই করি, জনদুর্ভোগের কারণ যাতে সৃষ্টি না হয় সে ব্যাপারে আন্দোলনকারীদের সতর্ক মনোযোগ আকর্ষণ করছি। একই সঙ্গে আমাদের কেউ যেন উসকানিতে না যায়, সে জন্য সবাইকে সতর্ক ও স্মরণ করিয়ে দিচ্ছি।’

শিক্ষকদের চলমান আন্দোলন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তাদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ আছে। কিন্তু আনুষ্ঠানিক বৈঠক হয়নি।সেটা খুব বেশি জটিল সমস্যা নয়, সমাধানের অযোগ্য নয়। সেটাও সমাধান অচিরেই হয়ে যাবে বলে আমি বিশ্বাস করি।’ গতকাল মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের যৌথসভার সূচনা বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে যৌথসভায় বসেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

কোটা বরাদ্দের বিষয়ে আপিল বিভাগ বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত দেবেন বলে আশা প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি আদালতের রায় পর্যন্ত আন্দোলনকারীদের ধৈর্য ধরার পরামর্শ দেন।

ছাত্রলীগকে সতর্কভাবে পরিস্থিতি মোকাবেলা করার নির্দেশনা দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কোনো অবস্থায় উসকানি দেওয়া যাবে না। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীকেও নেত্রী নির্দেশ দিয়ে গেছেন, তাদের পক্ষ থেকেও যেন উসকানি না দেওয়া হয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের অবস্থান অত্যন্ত পরিষ্কার। প্রধানমন্ত্রী ২০১৮ সালে একটা পরিপত্র জারি করে তখন কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, সে অনুযায়ী এত দিন সরকারি কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এর মধ্যে মুক্তিযোদ্ধার সাত সন্তান মামলা করেন কোটার বিষয় নিয়ে। হাইকোর্ট একটা রায় দেন, এই রায়ের বিরুদ্ধে সরকারপক্ষ থেকে আপিল করা হয়।’

শিক্ষকদের আন্দোলন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা তাদের প্রতি কোনো অসম্মান করছি না।

আমরা তাদের আন্দোলন পর্যবেক্ষণ করছি। সময়মতো এর সমাধান হয়ে যাবে—এটাই আমরা আশা করি।’

দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘একটা ব্যাপারে আমাদের সতর্কতা...এটা অবশ্যই রিলেটেড বিষয়; শিক্ষকদের আন্দোলনও অরাজনৈতিক এবং শিক্ষার্থীদের আন্দোলনও অরাজনৈতিক। এ অরাজনৈতিক আন্দোলনে বিএনপি ও তাদের সমমনাদের রাজনৈতিক সমর্থন নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে। এই অশুভ মহলটি শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের উসকানি ও ইন্ধন দিয়ে যাতে সারা দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না করতে পারে, সে জন্য সর্বত্র সাবধান ও সতর্ক থাকতে হবে। সেটা সবাইকে স্মরণ করিয়ে দিচ্ছি।’

বিএনপির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তারা নিজেরা আন্দোলন করতে পারে না। ২০১৮ সালে কোটাবিরোধী আন্দোলনের ওপর ভর করেছিল। এবারও তারা আন্দোলনে ব্যর্থ, হেরে যাওয়ার ভয়ে নির্বাচনে যায়নি। এখন কোটা সংস্কার আন্দোলনের ওপর ভর করে সরকার হটানোর দুরভিসন্ধি বাস্তবায়ন করা তাদের লক্ষ্য। এই অশুভ শক্তির ব্যাপারে আমাদের সতর্ক পাহারায় থাকতে হবে।’

সর্বশেষ
জনপ্রিয়